মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস

ডেস্ক প্রতিবেদন, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০১৯ উপলক্ষে যথাযোগ্য মর্যাদা, উৎসাহ উদ্দীপনা ও ভাব-গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয়।

ইনস্টিটিউটে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিনব্যাপী কর্মসূচী  শুরু   হয়। এছাড়া অন্যান্য কর্মসূচীর মধ্যে ছিল শিশু কিশোরদের মাঝে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতা, পিলো পাসিং, ও স্পেড ট্রাম্প প্রতিযোগিতা।

এছাড়াও মহান স্বাধীনতা দিবসের ওপর আলোচনা ও মুক্তিযুদ্ধের অভিজ্ঞতা বর্ণনা এবং শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফেরাত ও দেশের সুখ সমৃদ্ধি কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ। এতে সভাপতিত্ব করেন ইনস্টিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. ইনামুল হক।

এছাড়াও ইনস্টিটিউটের সকল উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা  উপস্থিত ছিলেন ।

আরও পড়ুন: স্বাধীনতা পুরুস্কার পেলো বিনা

আলোচনা সভায় বিনম্র শ্রদ্ধায় শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ করা হয়। এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে ক্রমধাবমান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করে যেতে হবে। দেশের স্বার্থে সবাই এক হয়ে কাজ করলেই দেশ আরও এগিয়ে যাবে।

বাংলাদেশ যে গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে তা যেন থেমে না যায় উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ আর কখনোই পরনির্ভশীল নয়, নিজম্ব সম্পদেই আত্মনির্ভরশীলতা বজায় থাকবে।

ড. ইয়াহিয়া বলেন, ২০১৬ সালে শুরু হওয়া জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট লক্ষ্য যেমন দারিদ্র দূরীকরণ, শিক্ষা স্বাস্থ্য, নারীর ক্ষমতায়ন, দুর্নীতি মুক্ত দেশগড়া সমঅধিকার প্রতিষ্ঠাসহ অন্যান্য অভীষ্ট লক্ষ অর্জনের কাজগুলো সততা আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের এ চেতনা ছড়িয়ে দিতে হবে। যেন ভবিষ্যত বাংলাদেশের কান্ডারীরা দেশ প্রেমে উজ্জীবিত হয়ে কাজ করে যেতে পারে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

সভায় বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া বিজয়ীদের হাতে পুরুস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্যরা। মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে শিশু থেকে সব বয়সিরা এসব প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।