বেদানা। ছবি: বিশাখা ঘোষ

বিশাখা ঘোষ, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: ডালিম ফল আয়ুর্বেদিক ও ইউনানী চিকিৎসায় পথ্য হিসেবে ব্যবহৃত হয়। ডালিমে বিউটেলিক এসিড, আরসোলিক এসিড এবং কিছু আ্যলকালীয় দ্রব্য যেমন- সিডোপেরেটাইরিন, পেপরেটাইরিন, আইসোপেরেটাইরিন, মিথাইলপেরেটাইরিন প্রভৃতি মূল উপাদান থাকায় ইহা বিভিন্ন রোগ উপশমে ব্যবহৃত হয়। কবিরাজী মতে ডালিম হচ্ছে হৃদয়ের শ্রেষ্ঠতম হিতকর ফল।

উদ্ভিদ পরিচিতি:
নাম: বেদানা, আনার বা ডালিম।
ইংরেজি নাম: Pomegranate
বৈজ্ঞানিক নাম: Punica granatum
বৈজ্ঞানিক শ্রেণিবিভাগ:
জগৎ:Plantae
বর্গ:Myrtales
পরিবার:Lythraceae
গণ:Punica
প্রজাতি: P. granatum

ঔষধি গুণ:
১.ফলের ছাল: আম ও রক্তাতিসার,অর্জীণ নাশক।
২.ডালিমের ফুল: রক্তস্নানাশক ও কফ।
৩.পাতা ও গাছের ছাল: সংকোচক,অতিসার,কৃমিনাশক।
৪.ফলের রস: স্নিগ্ধ গুণ,জ্বর-অতিসার-অজীর্ণ-অরুচি নাশক,বলকারক ও যকৃতের ক্রিয়া শোধক।এতে ভিটামিন বি ও সি পাওয়া যায়।
উপকারিতা:
১. পুষ্টিগুণ ডালিমে রয়েছে প্রচুর পুষ্টি। মাত্র এক কাপ ডালিম দানায় রয়েছে আপনার দৈনন্দিন চাহিদর ৩০ শতাংশ ভিটামিন সি, ৩৬ শতাংশ ভিটামিন কে, ১৬ শতাংশ ভিটামিন বি৯ ও ১২ শতাংশ পটাশিয়াম।
২. রক্তচাপ ডালিম রক্তচাপ কমাতে সহায়তা করে। আপনি যদি উচ্চ রক্তচাপে ভোগেন তাহলে নিয়মিত ডালিম খাওয়ার মাত্র দুই সপ্তাহেই আপনার রক্তচাপ স্বাভাবিক হয়ে যাবে।
৩. আথ্রাইটিস ও হাড়ের সংযোগস্থলে ব্যথা উপশম ডালিম আথ্রাইটিসে উপকার করে। এছাড়া এটি হাড়ের সংযোগস্থলে ব্যথা উপশম করতে সহায়তা করে।
৪. হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় ডালিম দেহের কোলস্টেরলের ঝুঁকি কমায়। এতে রক্তচলাচল বৃদ্ধি পায় এবং হৃদরোগের ঝুঁকি কমে।
৫. স্মৃতিশক্তি বাড়ায় ডালিম স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সহায়তা করে। আর এ কারণে এটি অ্যালঝেইমার্সের মতো রোগীদের জন্যও উপকারি।
৬. হিমোগ্লোবিন বৃদ্ধি ডালিমে রয়েছে বহু পুষ্টি উপাদান, যা দেহের হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়ায়। এতে অ্যানেমিয়া ও রক্তের নানা সমস্যা দূর করতে ভূমিকা রাখে।
৭. প্রাকৃতিক ইনসুলিন ডালিম ডায়াবেটিসের জন্য উপকারী। অনেকেই একে ইনসুলিনের বিকল্প হিসেবে বলেন। এটি মিষ্টি হলেও সাধারণত ডায়াবেটিস রোগীদের কোনো সমস্যা হয় না।
৮. ক্যান্সার প্রতিরোধী ডালিমের বেশ কিছু উপকার রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে ক্যান্সার প্রতিরোধ। বিশেষ করে স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধে এর ভূমিকা প্রমাণিত হয়েছে গবেষণায়।
৯. ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধী দেহে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে ডালিম। এছাড়া এটি ফাংগাস ইনফেকশনের বিরুদ্ধেই ভূমিকা রাখে।
১০. শারীরিক অনুশীলনের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি সুস্থ থাকার জন্য কিংবা ভালো পারফর্মেন্সের জন্য অনেকেই শারীরিক অনুশীলন করেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অনুশীলনের পাশাপাশি ডালিম খাওয়া হলে তা কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।

আরোও পড়ুন: ড্রাগন ফলের ৭টি উপকারিতা

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে বেদানা শিরোনামে সংবাদের লেখাটি লিখেছেন রাজশাহী কলেজ উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী বিশাখা ঘোষ

উল্লেখ্য,  রাজশাহী কলেজে শুরু হয়েছে ‘প্লান্ট ফটোগ্রাফি ২০২০’ প্রতিযোগিতা। কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের রাজশাহী কলেজ ন্যাচার কনজারভেশন ক্লাবের (আরসিএনসিসি) উদ্যোগে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীর নামসহ লেখা পত্রিকায় প্রকাশ করা হবে।

বিস্তারিত: রাজশাহী কলেজে ‘প্লান্ট ফটোগ্রাফি’ প্রতিযোগিতা শুরু