বৃহস্পতিবারের (২০ ফেব্রু;) পোল্ট্রির

ডেস্ক প্রতিবেদন, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ডিম, দুধ, মাছ, মাংস খাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ওয়াপসা-বিবি সভাপতি আবু লুৎফে ফজলে রহিম খান (শাহরিয়ার)।

তিনি সাম্প্রতিক সময়ে দেশে ছড়িয়ে পড়া কেভিড-১৯ ভাইরাস প্রতিরোধে সরকার কর্তৃক ঘোষিত সতর্কতামূলক নির্দেশনা যথাযথভাবে মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে এ আহ্বান জানান।

বলেন, শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ডিম, দুধ, মাছ, মাংসের মত পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণের পরিমান আরও বাড়াতে হবে।

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজতি এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আজ বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ, ২০২০) রাজধানীর নিকেতনে ওয়ার্ল্ড’স পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন-বাংলাদেশ শাখার (ওয়াপসা-বিবি) নিজস্ব কার্যালয়ে আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হয় এ সভা।

সভায় নিরাপদ পোল্ট্রি উৎপাদনের মাধ্যমে উন্নতমানের প্রোটিন সমৃদ্ধ খাদ্য ডিম ও মুরগির মাংস উৎপাদনে বদ্ধপরিকর বাংলাদেশের পোল্ট্রি শিল্প বলে উল্লেখ করেন বক্তারা। তারা মনে করেন দেশের চাহিদা মিটিয়ে ২০২৫ সালের মধ্যেই রপ্তানী সক্ষমতা তৈরি করা সম্ভব।

এতে ওয়াপসা-বিবি সভাপতি আবু লুৎফে ফজলে রহিম খান (শাহরিয়ার) সাম্প্রতিক সময়ে দেশে ছড়িয়ে পড়া কেভিড-১৯ ভাইরাস প্রতিরোধে সরকার কর্তৃক ঘোষিত সতর্কতামূলক নির্দেশনা যথাযথভাবে মেনে চলার পরামর্শ দেন। এরপাশাপাশি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ডিম, দুধ, মাছ, মাংসের মত পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণের পরিমান আরও বাড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।

ওয়াপসা-বিবি সভাপতি আবু লুৎফে ফজলে রহিম খান শাহরিয়ার বলেন, ডিমে আছে প্রায় সব ধরনের অত্যাবশ্যকীয় অ্যামিনো এসিড, খনিজ এবং ভিটামিন ‘সি’ ছাড়া প্রায় সব ক’টি ভিটামিন। প্রাকৃতিকভাবে খুব কম খাবারেই ভিটামিন ‘ডি’ আছে, এর মধ্যে ডিম একটি।

তিনি আরও বলেন, বৈজ্ঞানিক তথ্য মতে মুরগির মাংসে আছে ভিটামিন ‘এ’। যা রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা সক্রিয় রাখতে অত্যন্ত সহায়ক। তাছাড়া এটি সংক্রমণ প্রতিরোধী হিসেবেও কাজ করে।

শাহরিয়ার আরও বলেন, মুরগির মাংসে থাকা ভিটামিন বি১, বি৬, বি১২ দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করে। এর প্রোটিন উপাদান- দেহ সুস্থ্য, সবল ও কর্মক্ষম রাখতে অত্যন্ত কার্যকর। তাই উদ্ভুত পরিস্থিতিতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ডিম, মাংস, দুধ এ ধরনের পুষ্টিকর খাদ্য খাওয়া অত্যন্ত জরুরি।

সভায় ওয়াপসা-বাংলাদেশ শাখার সাধারন সম্পাদক ডা. এম. আলী ইমাম বলেন, বাংলাদেশের পোল্ট্রি শিল্প এখন নিরাপদ ডিম ও মাংস উৎপাদনে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছে। “বিগত কয়েক বছরের পথ পরিক্রমায় আমরা বেশ খানিকটা এগিয়েছি এবং রপ্তানী বাজারে প্রবেশের লক্ষ্যে সরকারের প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সহযোগিতা নিয়ে কাজ করছি।

২০২৫ সালকে সামনে রেখে অনেকগুলো কাজ আমাদের সম্পন্ন করতে হবে সেজন্য সরকারের তরফ থেকে অধিকতর সহযোগিতা প্রয়োজন বলে জানান আলী ইমাম।

তিনি জানান, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বেশ আগে থেকেই পোল্ট্রি দিবস পালিত হয়ে আসলেও এবারই প্রথম আমরা বাংলাদেশে এ দিবসটি উদযাপন করছি ‘মুজিব বর্ষ’কে সামনে রেখে। তবে করোনা ভাইরাসের সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে জনস্বার্থে ‘পোল্ট্রি ফেস্ট’ এবং ‘সিম্পোজিয়াম’আপাতত: স্থগিত করা হয়েছে; যা সুবিধাজনক সময়ে আয়োজন করা হবে।

ডা. ইমাম আরও বলেন, দেশকে অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে নিতে হলে অভ্যন্তরীন চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি রপ্তানী খাতে গুরুত্ব দিতে হবে। আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো যেহেতু শুধুমাত্র গার্মেন্টস শিল্পের ওপর নির্ভরশীল না থাকার এবং সেই সাথে কৃষিভিত্তিক শিল্পের উপর গুরুত্ব দেয়ার পরামর্শ দিচ্ছে; তাই আমাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাকে নতুনভাবে ঢেলে সাজাতে হবে এবং পোল্ট্রি’র উপর সবিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে কারণ এটিই একমাত্র কৃষিভিত্তিক শিল্প যা ভার্টিক্যালি বাড়ানো সম্ভব।

তিনি বলেন, আমরা দোয়া করছি দেশ অচিরেই কোভিড-১৯ ভাইরাস মুক্ত হবে এবং সামাজিক ও অর্থনৈতিক জীবনে স্বস্তি নেমে আসবে।

ওয়ার্ল্ড’স পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন (WPSA) একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন। পোল্ট্রি বিজ্ঞান সম্পর্কিত গবেষণা, জ্ঞান, শিক্ষা ও দক্ষতা এবং সেই সাথে পোল্ট্রি শিল্পের উন্নয়নে ১৯১২ সাল থেকে কাজ করছে স্বেচ্ছাসেবী এ সংগঠনটি।

বিশ্বের মোট ৮০টি দেশে এর শাখা রয়েছে। সদরদপ্তর নেদারল্যান্ডে। বাংলাদেশ শাখাটির জন্ম হয় ১৯৯৭ সালে। বাংলাদেশের পোল্ট্রি শিল্পের উন্নয়নে, প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতা সাধনে, গবেষণা, জ্ঞান ও শিক্ষার বিস্তারে উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে চলেছে ওয়ার্ল্ড’স পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন-বাংলাদেশ শাখা।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ডিম, দুধ, মাছ, মাংস খাওয়ার আহ্বান শিরোনামের সংবাদের তথ্য ডা: এম. আলী ইমাম, সাধারন সম্পাদক, ওয়াপসা-বিবি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান।