ভারত থেকে ডিম আমদানির

নিজস্ব প্রতিবেদক, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: ভারত থেকে ডিম আমদানির অনুমতির আবেদন যাচাই-বাছাই করছে প্রাণিসম্পদ অধিদফতর। ১০ কোটি ডিম আমদানির অনুমতির আবেদনের প্রেক্ষিতে এ যাচাই বাছাই শুরু করেছে অধিদফতরটি।

মুন্সি এন্টারপ্রাইজ নামের প্রতিষ্ঠানটি বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ে এ সংক্রান্ত আবেদন করে। এ বিষয়টি যাচাই বাছাইয়ের জন্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে গত ৪ ফেব্রুয়ারি চিঠি দিয়েছে।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, মন্সি এন্টারপ্রাইজ বছরে ১০ কোটি ডিম আদমদানি করতে চায়। এতে বাজারে কোন ডিমের ঘাটতি হবে কিনা এবং প্রাণিসম্পদে কোন ক্ষতির হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কিনা তা জানানোর জন্যে অনুরোধ করা হলো।

আজ বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০) মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (প্রাণিসম্পদ ২) ড. অমিতাভ চক্রবর্ত্তী এগ্রিকেয়ার২৪.কম কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের চিঠিটি প্রাণিসম্পদ অধিদফতরে পাঠানো হয়েছে। অধিদফতরের পক্ষ থেকে বিষয়টি যাচাই বাছাই করে মন্ত্রণালয়ে সিদ্ধান্ত দিবে।

প্রাণি সম্পদ অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) ড. আজিজুর রহমান শেখ এগ্রিকেয়ার২৪.কম কে মন্ত্রণালয়ের চিঠি পাওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আজ বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) চিঠিটি তারা পেয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনুচ্ছুক প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের একাধিক কর্মকর্তা এ প্রতিবেদককে বলেন, খাওয়ার ডিম আমদানির এরকম অনুমতি অনেকেই চেয়েছেন কিন্তু সব সময়ই প্রাণিসম্পদ অধিদফতর থেকে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে।

এবারও তাই করা হবে। কেননা আমদানির অনুমতি দিলে আমাদের দেশে খামারিরা এতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এছাড়া দেশে ডিমের বাজারও যে খুব বেশি তাও নয়। সুতারাং ডিম আমদানির বিষয়ে সাড়া দিবে না প্রাণিসম্পদ অধিদফতর।

এদিকে বাংলাদেশ ডিম উৎপাদনে অনেকটা স্বয়ংসম্পর্ণের পথে যখন ঠিক তখন ডিম আমদানি ভালোভাবে দেখছেন না দেশের উদ্যোক্তারা। এতে প্রাণিসম্পদ ক্ষতির মুখেও পরতে পারে মনে করছেন খামারিরা।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর সূত্র বলছে, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ডিমের মাথাপিছু কনজাম্পশন ছিল ১০৩টি। এ বছর (২০১৯) সে লক্ষ্য অবধারিতভাবেই (১০৪টি) পূর্ণ হতে চলেছে।

সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের দাবি, ২০১৯-২০ অর্থবছরে মাথাপিছু ডিম খাওয়ার পরিমান ১০৫টিতে উন্নীত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এ অর্জনের মধ্য দিয়ে প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভূটান প্রভৃতি দেশকে পেছনে ফেলে এগিয়ে থাকবে বাংলাদেশ।

ভারত থেকে ডিম আমদানির অনুমতির আবেদন যাচাই-বাছাই করছে প্রাণিসম্পদ অধিদফতর এতে অনুমতি মিলবে না বলেই আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।