বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ২:৩৭
Home > প্রচ্ছদ > রাজধানীতে মৌ-মেলা শুরু
2097_ACS_1627_19-Poultry_Dairy-Ad

রাজধানীতে মৌ-মেলা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: রাজধানীতে ‘পুষ্টি, আয় ও ফলন বাড়াবে মৌ চাষ’প্রতিপাদ্যে নিয়ে শুরু হয়েছে জাতীয় মৌ মেলা চলবে।

আজ রোববার (১০ মার্চ) কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে জাতীয় মৌ মেলা ২০১৯ এর উদ্বোধন করেন কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক। এ উপলক্ষে মিল্কী অডিটরিয়ামে ‘মৌচাষ ও মধুর বাজার সম্প্রসারণ, সমস্যা ও উত্তরণ’ বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

রাজধানীর ফার্মগেটে আ. কা. মু গিয়াস উদ্দীন মিলকী অডিটরিয়াম চত্বরে তিনদিন ব্যাপী এ মেলা আগামী ১২ মার্চ শেষ হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক মধুর বাণিজ্যিকীকরণের মাধ্যমে উৎপাদন বৃদ্ধি ও রফতানি প্রক্রিয়াকে সম্প্রসারণ করতে বিভিন্ন ক্ষেত্র খুজে বের করতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরকে আহবান জানান ।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সচিব মো: নাসিরুজ্জামান। সভাপতিত্ব করেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মীর নূরুল আলম। স্বাগত বক্তব্য দেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হর্টিকালচার উইংয়ের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক শাহ মো: আকরামুল হক।

মৌচাষ ও মধুর বাজার সম্প্রসারণ, সমস্যা ও উত্তরণ’ বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কীটতত্ব বিভাগের প্রফেসর মোঃ আহসানুল হক স্বপন।

মূল প্রবন্ধের ওপর আলোচক ছিলেন বিসিকের মৌ চাষ উন্নয়ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক খোন্দকার আমিনুজ্জামান ও বাংলাদেশ এগ্রো প্রসেসরস অ্যাসোসিয়েশন (বাপা) এর এ এফ এম ফখরুল ইসলাম মুন্সী।

মেলায়  সরকারি-বেসরকারি ৫৮টি প্রতিষ্ঠানের ৬১টি স্টল রয়েছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে চাষ করা সরিষা, ধনিয়া, তিল, কালিজিরা, খেসারী, লিচু এসব ফসলে মৌ-চাষ, মধু আহরন ও প্রক্রিয়াজাতকরণ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন মেলায় আসা দর্শনার্থীরা।

সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সকলের জন্য খোলা থাকবে মেলা। মাঠ ফসলসহ বিভিন্ন ফসলে মৌচাষ করলে মধু উৎপাদনের পাশাপাশি ফসলের উৎপাদন অনেকাংশে বেড়ে যাবে এবং পরিবেশবান্ধব খামার ব্যবস্থাপনার উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এ মেলার আয়োজন করা হয়।

উল্লেখ্য, মধু এখন রফতানি পণ্য তালিকায় নাম লিখিয়েছে। ফসলের মাঠে মৌমাছি বিচরণ করলে পরাগায়ণের কারণে ফসলের উৎপাদন ১৫-২০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়বে। মৌচাষের মাধ্যমে মধু আহরণে সমৃদ্ধি ও শস্য বা মধুভিত্তিক কৃষিজ উৎপাদন বৃদ্ধি পায়।

মৌসুমে সরিষা, ধনিয়া, তিল, কালিজিরা, লিচুসহ আবাদ হয় মোট প্রায় ৭ লাখ হেক্টর জমিতে বা বাগানে। মাত্র ১০ শতাংশ জায়গায় মৌ বাক্স বসিয়ে মধু আহরণ করে। প্রায় ২৫ হাজার মৌ-চাষিসহ মধু শিল্পে জড়িত প্রায় ২ লাখ মানুষ। উৎপাদন প্রায় ৬ হাজার টন।

ফসলের এই পুরো সেক্টরটিকে মধু আহরণের আওতায় আনতে পারলে ফসলের উৎপাদন দ্বিগুণেরও বেশি হবে। দেশে এখন প্রায় সাড়ে ছয় লাখ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদ হয়। পুরো সরিষার মাঠ মধু সংগ্রহের আওতায় আনা গেলে উৎপাদন যেমন বাড়বে, তেমনি ভোজ্যতেলের আমদানি নির্ভরতাও কমবে।

About এগ্রিকেয়ার২৪.কম

Check Also

কৃষির উন্নয়নে আন্তরিকতা, ত্যাগের মনোভাব নিয়ে কাজের আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: সরকারের কৃষি উন্নয়নের ধারাবহিকতা বজায় রাখতে আন্তরিকতা, নিষ্ঠা ও ত্যাগের মনোভাব নিয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বত্ব © এগ্রিকেয়ার টোয়েন্টিফোর.কম (২০১৭-২০১৯)
সম্পাদক: কৃষিবিদ মো. হামিদুর রহমান। নির্বাহী সম্পাদক: মো. আবু খালিদ।
যোগাযোগ: ২৩/৬ আইওনিক প্রাইম, রোড ২, বনানী, ঢাকা ১২১৩।
Email: agricarenews@gmail.com, Mobile Number: 01831438457, 01717622842