পোল্ট্রি ডেস্ক, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: মুরগির ক্যানাবলিজম মারাত্মক বদ অভ্যাস।খামারে একবার ক্যানাবলিজম হলে খুব সহজেই তা দূর করা কষ্টকর। তবে কিছু বিষয়ের ওপর সজাগ দৃষ্টি দিলে তা নিয়ন্ত্রণ ও ক্ষতির পরিমাণ কমানো যায়। মুরগির ক্যানাবলিজম রোধের কয়েকটি কার্যকরী উপায়।

যে বিষয়ের ওপর বিশেষ যতœ নিতে হবে তা হলো-

১. সুষম খাদ্য সরবরাহ করতে হবে : মুরগিকে তার প্রয়োজনমতো সব পুষ্টি উপাদানের উপস্থিতি ঠিক রেখে সুন্দরভাবে খাদ্য প্রস্তুত করতে হবে। কোনো ঘাটতি যেন না থাকে সে ক্ষত্রে লক্ষ রাখতে হবে। ভিটামিন ও মিনারেলের ওপর সুনজর রাখতে হবে।

আর মুরগি সাধারণত যে অর্গানিক উপাদানগুলো গ্রহণ করে থাকে তাই উৎপন্ন মাংস ও ডিমে সরবরাহ করে। তাই তার নিজের খাদ্যে যদি এগুলো উপাদানের ঘাটতি থাকে তাহলে সে দিনে দিনে ঘাটতিতে পড়ে যাবে। আর সব উপাদান ভালো মাত্রায় রাখলে এ ক্যানাবলিজমের পরিমাণ অনেকাংশেই হ্রাস পাবে।

২. পর্যাপ্ত পানির ও খাদ্যের পাত্রের সরবরাহ বাড়াতে হবে : মুরগির সংখ্যা অনুযায়ী পাত্রের সংখ্যা নির্ধারণ করে তাতে পরিষ্কার ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করতে হবে। খাবারের জায়গা সবসময় পরিষ্কার রাখার ব্যবস্থা করতে হবে। খাবার পরিমাণ মুরগির বয়স অনুযায়ী নির্ধারণ করে মুরগির সংখ্যার সঙ্গে তালমিলিয়ে প্রয়োগ করতে হবে।

৩. সময়মতো ডিবেকিং (ঠোঁট ছোট) করা : বর্তমানে সহজ উপায়ে মুরগির ক্যানাবলিজম দূর করার জন্য ডিবেকিংকেই একমাত্র প্রধান হাতিয়ার হিসেবে দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। বিশেষত লেয়ার মুরগির ক্ষেত্রে ঠোটের এক-তৃতীয়াংশ কেটে দিতে হবে। আর এ সময় মুরগির রক্তক্ষরণ কমানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

যেমন- দক্ষ লোক দ্বারা এ কাজ সম্পন্ন করা

১. আইরন ব্রান্ড কে পর্যাপ্ত তাপমাত্রায় উত্তপ্ত করা।
সতর্কতার সঙ্গে মুরগিকে ধরা এবং মেশিনে স্থাপন করা।
২. পরিমাণ মতো ঠোঁট কাটা বেশি না কাটা।
৩. ঠোঁট কাটার পর মুরগির স্ট্রেস (ধকল) কমানো জন্য ভিটামিন সি অথবা লেবু পানি খাওয়ানো।
৪. পর্যাপ্ত জায়গার ব্যবস্থা করা : সব মুরগিকে তার নিজের সব কাজ সঠিকভাবে করার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা দিতে হবে।
৫. মুরগির ভিড় কমানো : বেশি মুরগি একসঙ্গে গাদাগাদি করে যেন না থাকে সে দিকে বিশেষ লক্ষ রাখতে হবে।
৬. পর্যাপ্ত আলো বাতাসের ব্যবস্থা করতে হবে।
৭. শেডের আলো সব জায়গায় যেন সমভাবে ব্যাপ্ত হয় সেদিকেও দৃষ্টি রাখতে হবে। লাইট ব্যবহারের ক্ষেত্রে ৪০ ওয়াটের ওপর বাল্প ব্যবহার করা উচিত নয়।
৮. পোলট্রি খাবারে যথেষ্ট পরিমাণে মিথিওনিন সরবরাহ করতে হবে। মিথিওনিন ক্যানাবলিজম প্রতিরোধ করতে বেশ সহায়তা করে।

আরোও পড়ুন: যেসব কারণে মুরগির ক্যানাবলিজম হয়ে থাকে

মুরগির পায়খানা দেখে রোগ নির্ণয় পদ্ধতি

মুরগির ক্যানাবলিজম রোধের কয়েকটি কার্যকরী উপায় লিখেছেন মো. মোস্তাফিজুর রহমান শিক্ষার্থী, ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিমেল সায়েন্স অনুষদ, ৪র্থ বর্ষ, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, দিনাজপুর। লেখাটি কৃষি তথ্য সার্ভিস থেকে নেওয়া হয়েছে।

মুরগির ক্যানাবলিজম রোধের কয়েকটি কার্যকরী উপায় ছাড়াও প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ উত্তম। ক্যানাবলিজমের ক্ষেত্রেও ঠিক একই বিষয়।

এগ্রিকেয়ার/এমএইচ