রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৩৭
Home > মৎস্য > ২২ দিন ইলিশ আহরণ, পরিবহন, বাজারজাতকরণ, মজুদ নিষিদ্ধ
2097_ACS_1627_19-Poultry_Dairy-Ad
২২ দিন ইলিশ আহরণ

২২ দিন ইলিশ আহরণ, পরিবহন, বাজারজাতকরণ, মজুদ নিষিদ্ধ

মৎস্য ডেস্ক, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: আগামী ৯ থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ আহরণ, পরিবহন, বাজারজাতকরণ, মজুদ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

সোমবার (৭ অক্টোবর, ২০১৯) মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, সারাবিশ্বের মোট উৎপাদিত ইলিশের প্রায় ৮০ শতাংশ আহরিত হয় এদেশের নদ-নদী, মোহনা ও সাগর থেকে। বিগত দশবছরে ইলিশ উৎপাদনের গড় প্রবৃদ্ধি হয়েছে প্রায় ৫.২৬ শতাংশ।



তিনি জানান, ৬ লাখ মানুষ ইলিশ-আহরণে সরাসরি নিয়োজিত এবং ২০ থেকে ২৫ লাখ মানুষ ইলিশ পরিবহন, বিক্রয়, জাল ও নৌকা তৈরি, বরফ-উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাতকরণ, রপ্তানি ইত্যাদি কাজে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত।

বাংলাদেশে মোট উৎপাদিত মাছের প্রায় ১২ শতাংশ আসে শুধু ইলিশ থেকে, যা একক প্রজাতি হিসেবে সর্বোচ্চ। জিডিপিতে এর অবদান শতকরা ১ ভাগ।

তিনি মাছের উৎপাদনে স্বয়ম্ভরতার্জনসহ ইলিশের উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপের বর্ণনা দিয়ে বলেন, সম্প্রতি পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেড মার্কস অধিদপ্তর দেশের জাতীয় মাছ ইলিশের ভৌগলিক নির্দেশক (Geographical indication) নিবন্ধন প্রদান করেছে। ইলিশ-আহরণে বাংলাদেশ বিশ্বে সর্বশীর্ষে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জানান, ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধি ও ত্বরান্বিত করতে চলতি বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে অর্থাৎ ৯ অক্টোবর হতে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত সারাদেশে মোট ২২দিন ইলিশ-আহরণ, পরিবহণ, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও মজুত নিষিদ্ধ করে ইতোমধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে।

উপকূলীয় ইলিশ প্রজননক্ষেত্রের অন্তর্গত ৭,০০০ বর্গকিলোমিটার এলাকাসহ দেশব্যাপী ইলিশ-আহরণ, পরিবহন, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয়, মজুদ ও বিনিময় নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

প্রতিমন্ত্রী জানান, চলতিসনে ইতোমধ্যে মা-ইলিশধরা নিষিদ্ধ হবার পূর্বেই দেশের ইলিশসমৃদ্ধ ৩৫ জেলার ১৪৭ উপজেলায় মোট ৪ লক্ষ ৮ হাজার ৩২৯টি জেলেপরিবারকে ২০ কেজি হারে মোট ৮ হাজার ১৬৭ মে. টন খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

প্রধান প্রজননমৌসুমে ইলিশ-আহরণ এবং জাটকাধরা নিষিদ্ধকালীন জাটকা ও ইলিশসমৃদ্ধ এলাকার জেলেদের জন্য প্রতিবছর পরিবারপ্রতি ৪০ কেজি হারে খাদ্যসহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।

জাটকাধরা নিষিদ্ধকালীন ৮ মাস দেশের ১৭ জেলার ৮৫টি উপজেলায় জাটকা-আহরণে বিরত মোট ২ লক্ষ ৪৮ হাজার ৬৭৪টি জেলেপরিবারে ৪০ কেজি হারে ৪ মাসের জন্য প্রায় ৩৯ হাজার ৭৮৮মে টন ভিজিএফ খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

২২ দিন ইলিশ আহরণ, পরিবহন, বাজারজাতকরণ, মজুদ নিষিদ্ধ সংবাদটির তথ্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার (পিআরও) মোঃ শাহ আলম সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: পাবদা মাছের প্রজনন, পোনা উৎপাদন ও চাষ ব্যবস্থাপনা-পর্ব ১

About এগ্রিকেয়ার২৪.কম

Check Also

চা ও মাছের বর্জ্য

চা ও মাছের বর্জ্য থেকে মিলবে জ্বালানী এবং সার, সিকৃবির গবেষণায় সফলতা

ডেস্ক প্রতিবেদন, এগ্রিকেয়ার২৪.কম: চা ও মাছের বর্জ্য থেকে মিলবে জ্বালানী এবং সার, সিকৃবির গবেষণায় সফলতা। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বত্ব © এগ্রিকেয়ার টোয়েন্টিফোর.কম (২০১৭-২০১৯)
সম্পাদক: কৃষিবিদ মো. হামিদুর রহমান। নির্বাহী সম্পাদক: মো. আবু খালিদ।
যোগাযোগ: ২৩/৬ আইওনিক প্রাইম, রোড ২, বনানী, ঢাকা ১২১৩।
Email: agricarenews@gmail.com, Mobile Number: 01831438457, 01717622842